১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | দুপুর ১:০২

কুসুম শিকদার এখন লেখালেখি নিয়েই ব্যস্ত

স্টাফ রিপোর্টার: ২০১৬ সালে অন্বেষা প্রকাশনী থেকে একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত হয়েছিলো জাতীয় চলচ্চিত্র পুুরস্কারপ্রাপ্ত নন্দিত অভিনেত্রী কুসুম শিকদারের লেখা প্রথম কবিতার বই ‘নীল ক্যাফের কাব্য’। প্রথম বই লিখেই কুসুম অর্জন করেছিলেন ‘সিটি আনন্দ আলো সাহিত্য পুরস্কার’। একই বছরে গৌতম ঘোষ পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘শঙ্খচিল’এ অভিনয়ের জন্য সে বছরের শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে ২০১৮ সালের ৮ জুলাই তার হাতে ওঠে প্রথমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এই পুরস্কার পাবার পর থেকেই প্রধানমন্ত্রী এবং প্রেসিডেন্ট’র কার্যালয় থেকে রাষ্ট্রের বিশেষ বিশেষ দিবসে নিমন্ত্রণ পাচ্ছেন কুসুম শিকদার। বিষয়টিকে বেশ সম্মানের বলেই বিবেচনা করছেন কুসুম।
কুসুম বলেন, ‘নিঃসন্দেহে এই নিমন্ত্রণ শিল্পী হিসেবে আমার জন্য অনেক গর্বের এবং সম্মানের। আমি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারি কি না পারি, কিংবা তারা আমাকে প্রত্যাশা করেন কি বা না করেন কিন্তু নিমন্ত্রণ পত্রের উপরে নিজের নাম ছাপা অক্ষরে দেখে পুলকিত হই আমি। এমনটাতো আগে হতো না।’ লেখালেখিতে বেশ উৎসাহ কুসুম শিকদারের। তাই এবার অনেক আগে থেকেই আগামী একুশে গ্রন্থ মেলার জন্য তিনটি ছোট গল্প লিখছেন এক মলাটে প্রকাশের জন্য। কুসুম শিকদার আশা করছেন যে ডিসেম্বরের মধ্যেই লেখা শেষ হয়ে যাবে। আর তখনই তিনি প্রকাশনা সংস্থা চূড়ান্ত করবেন। কুসুম বলেন, ‘এই মূহুর্তে আমি লেখালেখি নিয়েই ভীষণ ব্যস্ত। যে কারণে নাটকের শুটিংও করছিনা।’ কুসুম শিকদার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র প্রয়াত খালিদ মাহমুদ মিঠু পরিচালিত ‘গহীনে শব্দ’। এরপর তিনি স্বপন পরিচালিত ‘লালটিপ’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। এই দুটি চলচ্চিত্রে তার বিপরীতে ছিলেন ইমন। তবে ‘শঙ্খচিল’ চলচ্চিত্রে তার বিপরীতে ছিলেন প্রসেনজিৎ। কুসুম অভিনীত ‘শঙ্খচিল’ চলচ্চিত্রটিও ভারতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করে। অনেকেরই অজানা কুসুম উচ্চাঙ্গ এবং নজরুল সঙ্গীতে বেশ পারদর্শী একজন শিল্পী। নজরুল একাডেমি থেকে বারো বছরের সার্টিফিকেট কোর্স সম্পন্ন করার পাশাপাশি তিনি ওস্তাদ ফুল মোহাম্মদের কাছে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত এবং ওস্তাদ মোর্শেদের কাছে নজরুল সঙ্গীতের তালিম নিয়েছিলেন। তার গানের অ্যালবামগুলো হচ্ছে ‘তুমি আজ কতোদূরে’, ‘অদল বদল’ এবং ‘জীবনের যতো চাওয়া’। ‘লাক্স আনন্দ ধারা মিস ফটোজেনিক- ২০০২’এ চ্যাম্পিয়ন হবার পর অভিনেত্রী হিসেবেই এগিয়ে চলা শুরু হয়। তার অভিনীত প্রথম নাটক অরুণ চৌধুরী পরিচালিত ‘বিয়ের আংটি’। এতে তার সহশিল্পী ছিলেন তারিন, মাহফুজ, জয়। তার প্রথম টিভি ধারাবাহিক সোহেল আরমানের ‘তিন পুরুষ’। কুসুমের কন্ঠে সর্বশেষ ‘নেশা’ গানটি শোনা যায় যা সাম্প্রতিক সময়ে বেশ আলোচনায় আসে।

প্রকাশ :  অক্টোবর ৬, ২০১৮ ১:০৫ পূর্বাহ্ণ
x

Check Also

আমার কিছু দুঃখ ছিল!

মিনু গরেট্টী কোড়াইয়া তার ক্ষীণভাগ তোমায় দিতে চেয়ে ফিরে গেছি বারবার; কিছু কষ্টের গানও ছিল ...