১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | দুপুর ২:১৪

যুবকদের র্নিমম ভাবে কোপালো সন্ত্রাসী বাহিনী

স্টাফ রিপোর্টার : ছয়-সাতজন যুবক দৌড়ে দোকানের ভিতরে প্রবেশ করে শাটার বন্ধ করে দিলেন। পর মূহুর্তেই একদল যুবক রামদা, চাপাতি, হকিস্টিক নিয়ে ভিতরে প্রবেশ করার চেষ্টা করে। কিছু সময় চেষ্টা করার পর জোর করে প্রবেশ করে তারা । আমি শুধু বললাম আপনারা কেন আমাকে ঘাড় ধাক্কা দোকান থেকে বের করে দিচ্ছেন? এরপর সন্ত্রাসী বাহিনী এলাপাথাড়ি ভাবে কোপাতে শুরু করলেন দোকনের মধ্যে আশ্রয় নেওয়া যুবক গুলোকে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই সব তছনছ হয়ে গেল। দোকানে মালামাল রক্তাক্ত হয়ে গেল মেঝের প্রায় সব জায়গায় রক্ত আর রক্ত। কথা গুলো বলছিলেন ওই দোকানে কর্মরত মাসুম শেখ(২১)।

শনিবার সন্ধা ৭ টায় গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা কাঠি বাজারের শেখ প্লাজার মার্কেটের সুপার চয়েজ দোকানের এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ছয়জন আহত হয়েছেন। আহতদের গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পরে এদের মধ্যে তিন জনের অবস্থার অবতনি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলানা প্রেরণ করা হয়।

আহতরা হলেন কাঠি গ্রামের বদরুল সরদার (২৫) রাব্বি শেখ (১৮), উজ্জল সরদার (২৫), তাজুল কাজি(১৯), হাচিব শেখ (১৯), মাহফুজ শেখ(২৭)।
শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কাঠি বাজারের দক্ষিন পাশে শেখ প্লাজা মার্কেটের চারতলা ভবন নিচ তলায় কফি হাউজ এবং অন্যান আরো কয়েকটি দোকান। দোতলায় সিড়ি দিয়ে উঠতেই চোখে পড়ে রক্তে লাল হয়ে আছে সিড়িঁ। সিড়িঁর সোপনগুলো উপরে উঠতেই সুপার চয়েজ নামের একটি দোকন কাচের গ্লাস চূর্ণ বিচূর্ণ। ভিতরে প্রবেশ করতেই দেখা গেল পুরো মেঝেই রক্তে লাল হয়ে আছে। ওই দোকনের সামনেই ইসলামি মোবাইল ব্যাংকিং শাখার সিসি ক্যামেরা চলছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী কাঠি গ্রামের বাসিন্দা ফজলুল হক শেখ বলেন, আমি নিচ তলায় কফি হাইজের পাশে চা পান করছিলাম। আর ভিতরে সাত থেকে আটজন যুবক কফি পান করছে। কিছু সময় পর দেখি মার্কেটের মুল ফটকে শোরগোল তখন কফি হাইজের যুবক গুলো বের হয়ে দৌড়ে দোতলায় সুপার চয়েজ দোকানে ভিতরে পালাচ্ছে। তাদের পেছনে রাম দা হাতে কয়েকটি যুবক তাড়া করছে। আমি উপরে ইঠতেই দেখি ওই
দোকানে মধ্যে এলাপাথাড়ি ভাবে কোপাচ্ছে। আমি, বললাম এভাবে মানুষকে মানুষ কোপায় ? তখন আমাকে রামদার অপর পিট দিয়ে বাড়ি দেয়।
কাঠি গ্রামের বাসিন্দা সাইফুল শেখ বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্রকরে শওকত মোল্লার লোকেরা এসে বোরহানে মোল্লার লোকদের র্নিমম ভাবে কোপালো। এসব দৃশ্য ওই দোকানের সিসি ক্যামেরায় সব টুকু ধারন হয়েছে ।
ভিডিওটি গোপালগঞ্জ সদর থানার উপপরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম নিয়েছে। আমরা চাইলে তারা আমাদের কাছে দিবেনা বলে জানিয়েছে।

এঘটনায় শেখ প্লাজার মালিক মাহফুজ শেখ বাদি হয়ে ২০ জনের নাম উল্লেখ্য অজ্ঞত আরো দশ জনের নামে গোপালগঞ্জ সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন মামলায় করেছেন।

গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো.সানোয়ার হোসেন বলেন, আমরা আসামিদের ধরার জন্য সর্বাত্নক চেষ্টা চালাচ্ছি। আমি নিজেই মাঠে আছি। সম্পাদনা : এস এম সাব্বির

প্রকাশ :  জুলাই ১৫, ২০১৯ ২:৩০ পূর্বাহ্ণ
x

Check Also

গোপালগঞ্জ আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে জয়ী আতিয়ার-জুলকদর পরিষদ

মিজানুর রহমান মানিক : গোপালগঞ্জ আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি ও সম্পাদকসহ আতিয়ার-জুলকদর পরিষদ জয়ী হয়েছে। ...